শনিবার , জানুয়ারি ২৩ ২০২১
Home / বাংলাদেশ / খুলনা বিভাগ / বেচেঁ থাক ভাষাপ্রতী শৈশবের পরতে পরতে

বেচেঁ থাক ভাষাপ্রতী শৈশবের পরতে পরতে

মো:আজিজুল ইসলাম(ইমরান)
প্রত্যেক মানুষের জীবনে ভাষা এক গুরুত্বপূর্ণ জায়গা দখল করে আছে। জাতি, ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে সবার জীবনের সাথে এটি অতৎপরত ভাবে জড়িত। ইতিহাস থেকে জানা যায় ভাষার চর্চা সবার আগে শুরু হয় গ্রীস থেকে। কালের বিবর্তনে সেই ভাষা আজ আমাদের জীবনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ। বঙালিরা ছাড়া ভাষার জন্য জীবন দিয়েছে পৃথিবীতে এমন নজীর নেই। আমরাই প্রথম জেগেছিলাম মায়ের ভাষার জন্য,মাতৃভাষার জন্য। জেগেছিলাম স্বধীকারের জন্য। ১৯৫২ সালের সেই ত্যাগ থেকে শিক্ষা নিতে হবে আমদের । সেই দিন পিচ ঢালা কালো রাজপথ লাল বর্ণ ধারণ করে বাংলা ভাষা প্রতিষ্ঠার জন্য। বর্তমানে বিশে^র ১৯৫টি দেশ বাংলাকে ঘিরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করে। ফেসবুক, টুইটার এর যুগে বাংলা ভাষার ব্যবহার কমে গেছে অনেকাংশে। এখন শুদ্ধ বাংলা ব্যবহারের চেয়ে বিকৃত বাংলা ব্যবহারে আমরা অগ্রহী বেশি। আমরা আমাদের সন্তানদের ভাষা আন্দোলনের প্রকৃত ইতিহাস থেকে ক্রমে দূরে সরিয়ে নিচ্ছি। আমাদের সন্তানদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ এর কথা চিন্তা করে আমরা তাদের ইংরেজি মিডিয়ামে বেশি বেশি পড়াতে আগ্রহী। যে মায়ের ভাষার জন্য সালাম,রফিক,জব্বার,বরকত সহ নাম না জানা অসংখ্য মানুষ শহীদ হলো। সেই মায়ের ভাষাকে আজ আমরা মানের অজান্তেই দূরে ঠেলছি। সেদিনের সেই ভাষাপ্রীতি যেন কালের গর্ভে হারিয়ে না যায় সে জন্য সরকারী বেসরকারী ভাবে নানা কর্মসূচি নেয়া হলেও তা যেন পর্যাপ্ত হচ্ছে না। আমাদের ভাষাপ্রীতি জাগে শুধু একটা নির্দিষ্ট দিনে। যে ত্যাগের শিক্ষা বুকের তাজা রক্ত ঢেলে ভাষা শহীদরা আমাদের জন্য শিখিয়েছিল তা যেন আমরা হ্যেলায় না হারায়। তারই একটা নমুনা দেখা গেল সদরের রসুলপুর গ্রামের শিশু কিশোরদের মধ্যে। সারা গায়ে কাদা,মাটি,ধুলো তৈরি হচ্ছে ভাষা শহীদদের স্মরনে শহীদ মিনার। এক জন মা হাতে লাঠি নিয়ে তাড়াচ্ছে তার সন্তানকে। যদিও শহীদ মিনার তৈরি করছে যেনে থেমে গেলেন তিনি। মনের অজানেই বাংলা ভাষার প্রতি ভালবাসা থেকে শিশুরা কাদা মাটি দিয়ে তৈরি করেছে শহীদ মিনার। কাছে এগিয়ে যেতেই একটু ভয় ভেঙে কথা বলতে শুরু করল তারা। শুভ,শাকিব,শৌরব,
রিয়াদ সহ আরও অনেক শিশু তৈরি করেছে এই শহীদ মিনার। কেন তৈরি করছে এটা এর কিবা দরকার ? এমন কথা জানতে চাইলে তারা বলে আগামী কাল ২১শে ফেব্রæয়ারি, ভাষার জন্য যারা জীবন দিল তাদের জন্য আমাদের এই ক্ষুদ্র চেষ্টা। আমরা চাই সবাই তাদের স্মরণ করুক মন থেকে। ভাষা শহীদের স্মরণে খেলাচ্ছলে তার তৈরি করছে ইট,কাদা,মাটি দিয়ে শহীদ মিনার। কথা বলতে বলতে জড়ো হলো আরও অনেক শিশু কিশোর। তারাও যানতে চায় ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস। রাত পোহালেই ২১শে ফেব্রæয়ারি শিশু কিশোরদের এই আবেগ অনুভুতি ছেয়ে যাক স্বাধীন বাংলাদেশের সকল মানুষের হৃদয়ে। বাংলা ভাষার প্রতি অকৃত্রিম ভালবাসা বেড়ে চলুক আমাদের স্বত্তায়।

About Pratidiner Tottho

Check Also

গাবুরায় ছাত্রলীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে গাবুরায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
সর্বশেষ
সাতক্ষীরায় চেতনা নাশক স্প্রে ব্যবহার কারি চোর গ্রেফতার ৯ ইজিবাইক উদ্ধার ৩ গৌরীপুর পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিক বরাদ্দ বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে ময়মনসিংহে দুস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণে র‌্যাব-১৪ ময়মনসিংহে আবাসিক গ্যাস সংযোগের দাবীতে গ্রাহকগণের মানববন্ধন ধোবাউড়ায় পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী সহ গ্রেফতার-৪ গৌরীপুরে ভাতিজাকে বাঁচাতে এসে চাচা খুন গাবুরায় ছাত্রলীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত র‌্যাব-১৪, ময়মনসিংহ কর্তৃক দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় "বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি ময়মনসিংহে বমি করে টাকা পয়সা ও মোবাইল ছিনতাই কালে-আটক ৫ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠিত