বুধবার , মে ১২ ২০২১
Home / আন্তর্জাতিক / ২রা মে পর্যন্ত দীর্ঘ টি টুয়েন্টি ম্যাচে দুদলের ক্যাপ্টেন ছিলেন মোদী-মমতা

২রা মে পর্যন্ত দীর্ঘ টি টুয়েন্টি ম্যাচে দুদলের ক্যাপ্টেন ছিলেন মোদী-মমতা

রবীন্দ্র নাথ পালঃ এবার খেলা হবে,বললেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অপরদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপধ্যায় এবার জমবে খেলা। পশ্চিমবঙ্গের এক নির্বাচনী সভায় এক বিধায়ক প্রার্থীর দিকে ফুটবল ছুঁড়ে দিয়ে, আবার তিনি বিধায়কের ছুঁড়ে দেয়া বলটি লুফে নিলেন। বললেন এবার জমবে খেলা। মার্চের শুরু থেকে এপ্রিলের শেষ
পর্যন্ত চললো পশ্চিমবঙ্গ বনাম দিল্লি টি টুয়েন্টি গেম।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী, স্বরাষ্টমন্ত্রী অমিত শাহ থেকে শুরু করে একডজন হেভিওয়েট মন্ত্রী মাসভর পড়ে রইলেন পশ্চিমবঙ্গে। এমনকি বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ন জয়ন্তী অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলাদেশের মতুয়া সম্প্রদায়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেন। মতুয়াদের ভোট ফ্যাক্টর ভেবে দুদিন বাংলাদেশে থেকেও কোন ফলাফল তার পে আসেনি। যাক গত ২৭মার্চ থেকে ২রা মে পর্যন্ত দীর্ঘ টি টুয়েন্টি ম্যাচে দুদলের ক্যাপ্টেন ছিলেন মোদী-মমতা।
২রা মে’র ফাইনাল ম্যাচে মমতার ২১৫ রানের বিরুদ্ধে ব্যাট করতে নেমে ৭৫ রানে অলআউট হয়ে যায় মোদীর দিল্লি একাদশ। খেলা হবে,খেলা হবে বলে চিৎকার করে দিল্লির অধিনায়ক বারবার বললেন এবার দিদি’র বিদায় হবে। আর দিদি অর্থাৎ মমতা বললেন, শুধু আমি জিতলেই হবে না , আমার ২০০ রান চাই। হলোও তাই। তার দল প্রথমে ব্যাটিং করে
২১৫ রান করলেন। জবাবে মোদীর দল ব্যাট করতে নেমে দ্রুত রান তুলতে গিয়ে ৭৫ রানে অলআউট হয়ে মমতাকে জয়ের জন্য অভিনন্দন জানালেন।
কলকাতার এক জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল গত ২রা মার্চ নির্বাচনী ফলাফল ঘোষনা করতে গিয়ে বললেন টি টুয়েন্টি ম্যাচে মমতার টেকনিকের কাছে মোদীর গো হারা হারলেন। আরেকজন ভাষ্যকার বললেন, ৮৬ এর আর্জেন্টিনা দলের ম্যারাডোনার মত ম্যাচ বের করে নিলেন মমতার ঘাসফুল। তৃণমুলের হ্যাট্রিক বিজয়ে দিল্লি হতবাক। এমন সুন্দর ব্যাটিং,বোলিং ও ফিল্ডিংয়ের কাছে পদ্মফুল (বিজেপির মার্কা) ব্যাটিং ধ্বস নেমে এলো।
১৭ তম বিধানসভা নির্বাচনে ৭৪ বছরের মধ্যে এই প্রথম সিপিএম শূন্য রানে বিদায় নিলো। যারা কিনা ৩৪ বছর পশ্চিমবঙ্গ শাসন করেছে। আর কংগ্রেসের জোটের মাঠে পাত্তাই নেই। আউট ফিল্ডে বসে তারা হলো দর্শক মাত্র। মোদীর আত্মতুষ্টি হতে পারে নন্দীগ্রামে মমতার পরাজয়। কিন্তু মমতা সাফ বলে দিলেন তিনি মামলা করবেন। তাছাড়া অন্য আসন থেকে ও ৬মাসের মধ্যে তিনি জিতে আসলে মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকতে তার কোন বাঁধা নেই।
পশ্চিমবঙ্গে সাম্প্রদায়িকতার কোন স্থান নেই,সেটা এই নির্বাচনে পরিস্কার হয়ে গেলো। নির্বাচনে জিতে দিদি মমতা সেজন্য সংখ্যালঘু ভোটারদের অভিনন্দনও জানালেন। আত্মবিশ্বাস ভালো। অতি আত্মবিশ্বাস ভালো নয়। মোদী লোকসভা নির্বাচনে ম্যাজিক দেখালেও, পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে তার ম্যাজিক কোন কাজে আসেনি। মোদী কেন এমন গো হারা হারলেন,আমি তার বিশ্লেষন করবো না। তবে জমজমাট টি টুয়েন্টি ম্যাচে মমতার ঘাসফুল মোদীর পদ্মফুলকে জলে ডুবিয়ে দিয়ে আগামী ৫ বছর পশ্চিমবঙ্গের মতায় বহাল তবিয়তে যে থাকবেন তা নিশ্চিত করে বলা যায়। আর এ সময়টা মোদীকে মমতার জন্য তটস্থ থাকতে হবে।

About Pratidiner Tottho

Check Also

নেত্রকোণা জেলা পুলিশ প্রসাশন প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

স্টাফ রিপোর্টার: আজ ২১ ফেব্রুয়ারি। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। বিনম্র শ্রদ্ধা, যথাযথ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
সর্বশেষ