Breaking News

তিন দিনেরব্যাবধানে সাতক্ষীরায় আকষ্মিক বাড়ল পেঁয়াজের দাম

সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি :মোঃ আজিজুল ইসলাম(ইমরান):

ভারত সরকার পেঁয়াজ রফতানির ওপর ৪০ শতাংশ শুল্ক নির্ধারণ করায় দেশের বাজারে প্রভাব পড়ছে। ইতোমধ্যে সাতক্ষীরায় পেঁয়াজের খোলা বাজারে অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে।

তিনদিনের ব্যবধানে আকস্মিক পেয়াজের দাম বাড়ায় , বিক্রেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন।

সাতক্ষীরা বড় বাজারে আসা শহিদুল ইসলাম নামের এক ক্রেতা বলেন, গত তিনদিন আগে পেঁয়াজ কিনেছি ৫৫ টাকা কেজি। আজকে সেই পেঁয়াজ ৭০ টাকা কেজি। এভাবে দাম বৃদ্ধি পেলে ক্রেতাদের সাধ্যের বাইরে চলে যাবে পেঁয়াজের দাম। ভারত সরকারে হঠাৎ এমন সিদ্ধান্ত বেশ বিভ্রান্তিকর। তাছাড়া বর্ধিত দামের পেয়াজ তো এখনও দেশে আসেনি।

আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান এস.আর ইন্টারন্যাশনালের মালিক সাদ্দাম হোসেন বলেন, এই প্রথমবারের মতো ভারত সরকার পেঁয়াজের ওপর আমদানিকারক শুল্ক দিয়েছে। ইতোপূর্বে কখনও পেঁয়াজের ওপর শুল্ক আরোপ করেনি ভারত। পেঁয়াজের ওপর ৪০ ভাগ শুল্ক আরোপের কারণে ইতোমধ্যে সাতক্ষীরাসহ দেশের বাজারে অস্তিরতা শুরু হয়েছে। পেঁয়াজের কেজি প্রতি ১৫ থেকে ২০ টাকা দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স সৃষ্টি ট্রেডিংয়ের সত্ত্বাধিকারী দিপু রায় জানান, পেঁয়াজের ওপর ভারতের শুল্ক নির্ধারণের আগে দেশে প্রতিদিন ৮০ থেকে ১০০ ট্রাক পেঁয়াজ আমদানি হতো। তবে ৪০ শতাংশ শুল্ক নির্ধারণের পর রোববার (২০ আগস্ট) আমদানি হয়েছে মাত্র ৪০ ট্রাক পেঁয়াজ। শুল্ক নির্ধারণের আগে পেঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। এখন সেটার দাম বৃদ্ধি পেয়ে প্রতি কেজিতে ১৫ টাকা বাড়তি দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

ভোমরা সিঅ্যান্ডএফ অ্যায়োসিয়েশনের সভাপতি কাজী নওশাদ দিলওয়ার রাজু বলেন, ভারত পেঁয়াজ রফতানি করতে চায় না। সে কারণে সরাসরি নিষেধাজ্ঞা না দিয়ে শুল্ক আরোপ করেছে ব্যবসায়ীদের নিরুৎসাহিত করতে। এতে শুধু ভোমরা বন্দরে নয় সারাদেশেই পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল হয়ে উঠবে। দাম অনেক বেড়ে যাবে। ভারত সরকার এখন প্রতি কেজি পেঁয়াজ রফতানিতে শুল্ক নিবে ৪ রুপি। অর্থাৎ টাকার হিসেবে ৬ টাকা ৬০ পয়সা।

তিনি বলেন, দেশের বাজার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এখনি বাংলাদেশ সরকারকে ভারতীয় সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে শুল্ক প্রত্যাহারের ব্যবস্থা করতে হবে। না হলে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ হয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ ভারতীয় পেয়াজের মূল্য দেশি পেঁয়াজের থেকেও বেশি হয়ে যাবে। তখন আমদানি বন্ধ করে দিবে আমদানিকারকরা। এতে আরও অস্থিরতা দেখা দিবে।

অন্যদিকে, আকস্মিক পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধিতে খোলা বাজারে শুরু হয়েছে অস্থিরতা। দেশি ও ভারতীয় পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। প্রতি কেজিতে ১৫-২০ টাকা। ভারতীয় পেঁয়াজ বাজারে বিক্রি হচ্ছিল ৫০-৫৫ টাকায় সেটি বিক্রি হচ্ছে ৭০-৭৫ টাকায়। এছাড়া দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকায়। অথচ এই বিক্রি আগে বিক্রি হচ্ছিল ৬৫-৭০ টাকায়।

সাতক্ষীরার সুলতানপুর বড় বাজারের কাঁচামাল সমিতির সভাপতি আব্দুর রহিম বাবু বলেন, বর্তমানে বাজারে দেশি পেঁয়াজের সংকট রয়েছে এজন্য ভোক্তারা ভারতীয় পেয়াজের ওপর নির্ভরশীল। এদিকে ভারত সরকার পেঁয়াজের ওপর প্রথমবারের মতো শুল্কবৃদ্ধি করেছে যেটার প্রভাব পড়ছে খোলা বাজার পর্যন্ত। ইতোমধ্যে ক্রেতারা খুব অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। তবে এই বিষয়টিকে পুঁজি করে যেন কোনো অসাধু ব্যবসায়ী অতিরিক্ত মূল্যবৃদ্ধি না করে সেদিকে নজরদারি বাড়ানো হবে।

About Sak Shadi Masum

Check Also

প্রিয় নৌকা আমার ভাগ্যে কোনদিন জুটলো না

প্রতিদিনের তথ্য.কম ডেস্কঃ    নারী আসনে মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছিন ময়মনসিংহের গৌরীপুরে বার বার বাংলাদেশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *